কবর খুঁড়ে মৃতদেহ তুলতে গিয়ে ধরা পড়ল এক তান্ত্রিক ও মাসি

আইডিয়া টুডে নিউজ,  রামপুরহাট, ৪ আগস্ট ঃ ৪৪ দিন মৃত শিশু কন্যার মৃত্যু হয়েছে । তাকে কবর ও দেওয়া হয়। কিন্তু এক তান্ত্রিকের বিধান ছিল যে  মৃত শিশু কন্যা এখনো জীবিত রয়েছে। এমনই নিদান পেয়ে তান্ত্রিকের কথায় কবর খুঁড়ে মৃতদেহ তুলতে গিয়ে গ্রামবাসীদের রোষের মুখে পড়ল তান্ত্রিক এবং শিশু কন্যার মাসি। 

ঘটনাটি ঘটেছে বীরভূমের মুরারই থানার কাহিনগর গ্রামে। ওই গ্রামের বাসিন্দা সারিকুল শেখের বছর সাতেকের কন্যা রশ্মি খাতুন ৪৫ দিন আগে বাড়ির মধ্যেই বিদ্যুত্‍স্পৃষ্ট হয়। তাকে মুরারই গ্রামীণ হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিত্‍সক শিশুটিকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। এরপরেই পরিবারের লোকজন ময়নাতদন্ত না করিয়ে গ্রামে ফিরে সমাধিস্থ করে।

গ্রামেই মামার বাড়ি হওয়ায় ওই শিশু কন্যা বেশির ভাগ সময় মাসির কাছেই থাকত। পরিবারের দাবি, দিন কয়েক থেকে মা ও মাসিকে স্বপ্নাদেশ দিচ্ছে শিশু কন্যা। সে নাকি এখনো জীবিত রয়েছে। এর পরেই কবর খুঁড়তে শুরু করে।

বর পেয়ে সেখানে একে একে জমায়েত হন এলাকার মানুষ। কবর খুঁড়তে শুরু করলে ক্ষুব্ধ হন গ্রামের মানুষ। গ্রামবাসীদের রোষের মুখে পড়তে হয় মাসি এবং কবিরাজকে। গ্রামবাসীদের মারে মাথা ফেটে যায় কবিরাজের। তাদের আটকে রেখে পুলিশকে খবর দেওয়া হলে মুরারই থানার পুলিশ তাদের উদ্ধার করে। 

তবে জেলা শাসক মৌমিতা গোদারা বলেন, “এখনও কিছু মানুষের মধ্যে কুসংস্কার রয়েছে। আমরা প্রচারের মাধ্যমে সচেতন করার চেষ্টা করব”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *