বাবার শবদেহ কাঁধে নেওয়ায় অপরাধ, একঘরে চার কন্যা

আইডিয়া টুডে নিউজ, রাজস্থান, ৩০ জুলাইঃ দীর্ঘদিন ধরেই অসুখে ভুগছিলেন বছর আটান্নর দুর্গাশংকর। শনিবার রাতে মারা যান তিনি , তার ছেলে নেই নেই , আছে চার মেয়ে।ঘটনাটি ঘটেছে রাজস্থানের বুন্দি জেলার রাগের কলোনিতে। দুর্গাশংকর বাবুর  ইচ্ছা ছিল মৃত্যুর পর চার মেয়ের কাঁধে করেই শ্মশানে যাবেন।

সেই মত রবিবার বিকেলে বাবাকে কাঁধে করে শ্মশানে নিয়ে যান এই চার মেয়ে। কিন্তু শেষকৃত্য মিটতে না মিটতেই বিপাকে পড়েছেন তারা ।বাবার ‘ইচ্ছাপূরণ’-এর অপরাধে এই পরিবারটিকে একঘরে করে দেওয়ার নিদান দেয় খাপ পঞ্চায়েত।

দুর্গাশংকরের বড় মেয়ে মিনা বলেন বাবার ইচ্ছাপূরণে বাধা দেওয়া হয়। কিন্তু সেকথা না শুনেই আমরা বাবাকে কাঁধে করে শ্মশানে নিয়ে যাই। শেষকৃত্য সেরে ফিরে দেখি কমিউনিটির স্নানাগার তালাবন্ধ। কেউই ওই স্নানাগারের চাবি দেয়নি আমাদের। এই সময়ে কেউই বাড়িতে রান্না করেন না। কিন্তু প্রতিবেশীরা কেউই খাবার পাঠায়নি আমাদের। খাপ পঞ্চায়েতের সদস্যদের কাছে বিধবা মা ক্ষমাও চেয়েছেন, তাতেও মন গলেনি কারও।

তাঁর বোন কলাবতী। তিনি বলেন, ”বাবার শেষ ইচ্ছাপূরণের আমাদের দোষী প্রমাণিত করে শাস্তি দেওয়া হয়েছে। তবে এই ঘটনায় ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দিয়েছে স্থানীয় প্রশাসন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *