মূর্তি শোধন কে কেন্দ্র করে বিজেপি ও তৃণমূলের ধুন্ধুমার কেওড়াতলায়

কলকাতা  ঃ শ্যামাপ্রসাদের মূর্তি  কালি মাখানোর পর  বিজেপির   রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেন যে  দুধ দিয়ে মূর্তি শোধন  করবে ঠিক সেয় মত  বৃহস্পতিবার বিজেপি  কর্মীরা  শ্যামাপ্রসাদের  মূর্তির সামনে  মিছিল করে আসলে  পুলিস তাদের বাধা দেয় তখনি  বিজেপি ও তৃণমূলের ধুন্ধুমার বাধে ।এই নিয়েই বাধে বচসা। তা গড়ায় হাতাহাতিতে। চূড়ান্ত বিশৃঙ্খলা তৈরি হয় কালীঘাট-রাসবিহারী চত্বরে।  এদিকে বিজেপি কর্মীরা জড়ো হতেই তাঁদের বাধা দেন তৃণমূল সমর্থকরা। অভিযোগ, মূর্তি ভাঙাকে কেন্দ্র করে রাজনীতি করতে চাইছে বিজেপি। এদিন মেয়ো রোডের সভা থেকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানান, কিছু মাওবাদী মূর্তি ভেঙেছে, তার জন্য সরকারকে কেন দোষারোপ করা হচ্ছে? অনেকটা সে কথার সূত্র ধরেই বাস্তবে বিজেপি সমর্থকদের পথরোধ করেন তৃণমূল সমর্থকরা। বেধে যায় বচসা, গড়ায় হাতাহাতিতে। অভিযোগ, বিজেপি সমর্থকদের বেধড়ক মারধর করা হয়। যথেচ্ছ কিল-চড় ঘুষি মারা হয়। দফায় দফায় গ্রেপ্তার করা হয় বিজেপি কর্মী সমর্থকদের। রাসবিহারী মোড়ে তাঁদের আটকে সেখান থেকেই বিজেপি নেতা ও কর্মী সমর্থকদের প্রিজন ভ্যানে তোলা হয়। আটক করা হয় প্রায় চল্লিশজন বিজেপি কর্মীকে তৃণমূলের অভিযোগ, মূর্তি ভাঙাকে কেন্দ্র করে সুপরিকল্পিত রাজনীতির ছক বিজেপির। তাই-ই রুখে দেওয়া হচ্ছে। অন্যদিকে দিলীপ ঘোষ প্রতিক্রিয়া জানিয়ে বলেন, একে একে বিজেপির লোকেদের গ্রেপ্তার করে কেস দেওয়া হচ্ছে। এটা কী ধরনের গণতন্ত্র? বিজেপি-তৃণণূল সংঘর্ষে ঘোর উত্তপ্ত রাসবিহারী চত্বর।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *