আর ভালো নেই পৃথিবী। ক্রমশ গরম হচ্ছে সে

আর ভালো নেই পৃথিবী। ক্রমশ গরম হচ্ছে সে। ১৮৮০ সালের পর উষ্ণতার বিচারে দ্বিতীয় সবচেয়ে গরম বছর এই ২০১৭। সাম্প্রতিক এক সমীক্ষায় জানাল নাসা। নাসার গর্দার্দ ইনস্টিটিউট ফর স্পেস স্টাডিজ সারা বিশ্বের তাপমাত্রা বৃদ্ধি নিয়ে চালাচ্ছে রিসার্চ।

তাপমাত্রা বৃদ্ধিতে শুধুমাত্র ২০১৬ সালের পরে রয়েছে এই ২০১৭ সাল। এই বছরে সারা পৃথিবীতে ০.৯০ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা বৃদ্ধি পেয়েছে। ১৯৫১ সালে থেকে ১৯৮০ সাল অবধি সবচেয়ে কম ছিল তাপমাত্রা র বৃদ্ধি। ন্যাশানাল ওসানিক অ্যান্ড অ্যাটমোসফ্যারিক অ্যাডমিনিসট্রেশনের ২০১৭ সালে শেষ হওয়া এক পৃথক সমীক্ষাতেও দেখা গেছে ২০১৭ তৃতীয় উষ্ণতম বছর। এই সামাণ্য ফারাকটুকু হয়েছে দু’জনের রিসার্চ পদ্ধতির সামাণ্য ফারাকে কারণে। দুজনের রেকর্ডই দেখাচ্ছে ২০১০ থেকে পাঁচটা বছর সেরা তাপমাত্রা বৃদ্ধি হয়েছে গোটা বিশ্ব জুড়ে। নাসা সম্প্রতি বিশ্বের উষ্ণতা বৃদ্ধির যে চিত্র প্রকাশ করেছে, তাতে প্রতি বছরের উষ্ণতা বৃদ্ধি কিম্বা হ্রাসের বিষয়টিই দেখানো হয়েছে। নাসা-র জিআইএসএস দল এই বিষয়টায় দীর্ঘদিন রিসার্চ করেছে। বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন ওয়েদার স্টেশনে বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন পদ্ধতিতে তাপমাত্রা মাপা হয়। নাসার হিসেব মতো ০.১ ডিগ্রি ফারেনহাইটের মত তাপমাত্রায় পরিবর্তন এবং এটাই ৯৫ শতাংশ স্থির ছিল। নাসার পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, ‘বিশ্বের একটা অংশে গড়ে তাপমাত্রা বেশ অনেকটাই কমেছে। ‘ গ্য়াভিন স্কিমিড জানিয়েছেন , ‘পৃথিবী জুড়ে ৪০ বছর ধরে গড়ে উষ্ণতা বেড়েই চলেছে। ‘

১৮৮০ সালের পর থেকে ধীরে ধীরে এগিয়ে গেছে তাপমাত্রার অ্যানামলি তাও দেখিয়েছে নাসার চিত্র। এই ছবির প্রতিটা উষ্ণতার বৃদ্ধির ধাপটা বুঝিয়ে দিচ্ছে। গত শতাব্দীর থেকে এই শতাব্দীতে ১ ডিগ্রি সেলসিয়াসের কাছাকাছি বেড়েছে। উন্নয়নের জেরে নিঃসরণ হওয়া বিভিন্ন গ্যাস ও কার্বন ডাই অক্সাইডের ক্রমবদ্ধর্মান বাড়তি ভাব ভয় দেখাচ্ছে সকলকেই। এখন সেটা এক লাফে লাফে প্রতি বছর ১ ডিগ্রির কাছাকাছি বাড়ছে। এল নিনো, লা নিনা উষ্ণ ও ঠান্ডা ক্রান্তীয় প্রশান্ত মহাসাগর সারা পৃথিবীর বায়ু প্রবাহ ও আবহাওয়ার প্যাটার্ন বুঝিয়ে দিচছে বিশ্বের উষ্ণতা কতটা বদলে যাচ্ছে। আর্কটিক এলাকায় উষ্ণতাও বাড়ছে দ্রুত। পৃথিবীর ৬৩০০ আবহাওয়া দফতরের পাঠানো রিপোর্টের ভিত্তিতে চালানো সমীক্ষার পরই এই তথ্য জানা গেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *